জয় পরাজয় যাই হোক না কেন হাসি মুখে মেনে নিব : সনি রহমান

ছোট পর্দার অভিনয় শিল্পীদের সংগঠন অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচিত প্রথম কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে চলতি বছরের শুরুর দিকে। টেলিভিশন শিল্পীদের সংগঠিত রাখা, তাদের স্বার্থ রক্ষা করা ও নিয়ম-শৃঙ্খলা বজায় রেখে কাজ করার উদ্দেশ্য নিয়ে আগামী ২১ জুন অভিনয় শিল্পী সংঘের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

গতবারের মতো এবারের নির্বাচনেও অংশ নিচ্ছেন অভিনেতা সনি রহমান। এবারও তিনি লড়ছেন কার্যনির্বাহী সদস্য পদে। আত্মবিশ্বাসী সনি রহমান বিনোদন বক্স ডট কমকে বলেন ‘জয়-পরাজয় নিয়ে আমি চিন্তা করছি না। সংগঠনের প্রথম নির্বাচনে অংশ নিয়ে পাস করেছিলাম। এবারও আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। কারণ আমার প্রতি সহকর্মীদের ভালোবাসা সব সময়ই আছে।’

টেলিভিশন অভিনয়শিল্পী সংঘের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি। ওই নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে জয়ী হয়ে দুই বছর মেয়াদী কমিটিতে থেকে সংগঠনে সুনামের সঙ্গে কাজ করেন অভিনেতা সনি। সেবারের নির্বাচনে কোনো প্যানেলের সঙ্গে নয় বরং অন্যদের মতো একক ভাবে সঠিক রায়ে তিনি জয়লাভ করেন বলে জানান। এবারও একই লক্ষ্যে আগাচ্ছেন এই তরুণ তুর্কি।

প্রসঙ্গত, আগামী ২১ জুন অভিনয়শিল্পী সংঘের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে সকাল ৯টায়। চলবে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত। ওই দিন রাতেই ভোট গণনা শেষে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে। সমিতির বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৮১৯ জন। তবে ভোট দিতে সবাই পারবেন না। যারা চাঁদা পরিশোধ করে নবায়ন হবেন তারাই ভোট দিতে পারবেন।

এবারের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন প্রবীণ অভিনেতা খায়রুল আলম সবুজ। কমিশনে আরও থাকবেন অভিনেতা মাসুম আজিজ ও নাট্যজন বৃন্দাবন দাস। সংগঠনের প্রথম নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব সামলেছিলেন এম এম মহসিন। তার সহযোগী হিসেবে ছিলেন কেরামত মওলা ও হাফিজুর রহমান সুরুজ

আরও খবর